Main Menu

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন এর আলোকিত কর্মজীবন নিয়ে কিছু কথা

মোস্তাক চৌধুরী ঃ মানুষ চিরদিন বেঁচে থাকে না, বেঁচে থাকে তার কর্ম। মানুষ যদি ভালো কাজ করে তবে ঢোল পিটিয়ে তা প্রকাশ করতে হয় না। সেখানের বাতাসের সাথে ভেসে বেড়ায় তার কর্ম। আর খারাপ কাজ করলে যতই চাপাচাপি কর না কেন লোকালয়ের লোকমুখে তা ভেসে বেড়ায় প্রতিনিয়তই। তেমনি একজন ভালো দ কর্মট দেশপ্রেমিক সিলেটের মাটি ও মানুষের সাথে মিশে কাজ করা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন। ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম হযরত শাহ্জালাল (র:), হযরত শাহ্ পরান (র:) এর পূণ্যভূমির সিলেটে আসার পর থেকে দীর্ঘ ১০ মাসের ব্যবধানে সীমান্ত এলাকায় জুয়া, মদ, গাঁজা, হেরোইন, চুরাচালান, চুরি-ডাকাতিসহ অপরাধীদের বির“দ্ধে আলোচনার ঝড় তুলেছেন জেলা জুড়ে।

পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন। সিলেট জেলার সর্বজনের কাছে এক জননন্দিত নাম। ২০১৯ সালের ১৪ জুন তিনি সিলেট জেলার পুলিশ সুপারের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন। দায়িত্বভার গ্রহণের পর অল্প কিছুদিনের মধ্যেই পুলিশ বিভাগেও সিলেটের জনগণের নিকট তিনি ঘনিষ্ট হয়ে যার কাজের মাধ্যমে। সহজ সরল নিরীহ জনগণের পুলিশি সেবা প্রাপ্তির সহজলভ্যতা এখন অত্র জেলার মানুষের মুখে মুখে। কোভিড-১৯ মহামারী দুর্যোগ মোকাবেলায় তাঁর অসাম্য কর্মপ্রচেষ্টার দেশ ও জাতির কাছে দৃশ্যমান। অন্যদিকে অপরাধীরা এই সৎ পুলিশ অফিসারের নাম শুনলেই ভয়ে আতকে উঠে। বিভাগীয় কার্যক্রমের ভিত্তের বাইরেও রয়েছে তাঁর নানাবিধ সামাজিক কর্মদ্যোগ। স্বভাবজাত সৎ, ভালো চরিত্রগুণের অধিকারী মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আহমদ পিপিএম এর বণার্ঢ্য ও অসমাপ্ত কর্মজীবন সুধীজনের দৃষ্টিগ্রাহ্য করার প্রয়াসে আমার এ লিখা।

পড়াশোনায় অসামান্য মেধার অধিকারী এসপি ফরিদ উদ্দিন আহমদ পিপিএম একাডেমিক শিা শেষ করে প্রথমেই আইএফআইসি ব্যাংকের প্রবিশনারী কর্মকর্তা হিসেবে যোগদান করেন ২০০৪ সালে। আইএফআইসি ব্যাংকে চাকুরীকালীন সময়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের সহকারী পরিচালক পদে চুড়ান্তভাবে নিয়োগের জন্য মনোনীত হন এবং একই সময়ে আরও দুটি বেসরকারি ব্যাংকের অফিসার পদে চাকুরির সুপারিশ প্রাপ্ত হয়েছিলেন। এদিকে আইএফআইসি ব্যাংকে চাকরির পাশাপাশি পাবলিক সার্ভিস কমিশনের (পিএসসি) অধীনে বাংলাদেশে সিভিল সার্ভিস (বিসিএস) পরীায় বিভিন্ন ধাপে অংশ গ্রহণ করে যা”িছলেন। বিসিএস পরীায় কৃতিত্তের সাথে উত্তীর্ণ হলে ২০০৫ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার তাঁকে বাংলাদেশ পুলিশ সার্ভিসে সহকারী পুলিশ সুপার পদে চাকুরির জন্য মনোনীত করেন। ব্যাংকের চাকুরীতে ইস্তফা দিয়ে তিনি ২০০৫ সালের ২ রা জুলাই দেশসেবার ব্রত নিয়ে পুলিশের চাকুরীতে যোগদান করেন।

সারদা পুলিশ একাডেমির প্রশিণ শেষ করে প্রবিশনারী কর্মকর্তা হিসেবে ২০০৬ সালে বাস্তব প্রশিণে জন্য নারায়নগঞ্জ জেলায় পুলিশ বিভাগের কাজের সাথে যুক্ত হন। সেখান থেকে সরাসরি ২০০৬ সালে সিলেট জেলার উত্তর সার্কেলে সহকারী পুলিশ সুপার পদে নিযুক্ত হন এবং ২ বছর ৭ মাস দায়িত্ব পালন করে পরবর্তীতে বদলী হয়ে আসেন মাগুরা জেলায়। মাগুরা জেলায় ১ বছর দায়িত্ব পালন শেষে ২০১১ সালে জাতিসংঘের শান্তি রা মিশনে কাজের জন্য সরকার তাঁকে নির্বাচিত করেন। তিনি শান্তি রা মিশনের অধীনে চাকুরী করতে চলে যান হাইতি। মিশন শেষে দেশে ফিরে কিছুদিন ইউএন শাখায় কাজ করেন। ইউএন শাখায় কর্মকালীন সময়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে পদন্নোতি প্রাপ্ত হয়নি চট্টগ্রাম জেলায় যোগদান করেন। চট্টগ্রাম জেলা থেকে ২০১৪ সালের প্রথম দিকে বদলী হয়ে আসেন ঢাকা মেট্রোপলিটান পুলিশের অধীনে। এক বছর দায়িত্ব পালনের পর ২০১৫ সালের জানুয়ারীতে মতিঝিল জোনের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হিসেবে পদায়িত হন। মতিঝিল জোনে কর্মরত থাকা অবস্থায় ২০১৬ সালের মার্চ মাসে পুলিশ সুপার হিসেবে পদন্নোতি প্রাপ্ত হয়ে উপ-পুলিশ কমিশনার ট্রাপিক পূর্ব বিভাগের অধীনে দীর্ঘ তিন বছর পেশাগত দায়িত্ব পালন করার সুযোগ পান।
২০১৯ সালের ২৪ শে জুন এক সরকারি আদেশে সিলেট জেলার পুলিশ সুপার পদে নিযুক্ত হন এবং অদ্যাবধী এই পদে বহাল থেকে যথেষ্ট সুনাম ও দতার সাথে দায়িত্ব পালন করে যা”েছন। বৈশ্বিক মহামারী কভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণ ও মোকাবিলা করতে সিলেটের সর্বসাধারণের মুখে মুখে উ”চারিত হ”েছ আজ এসপি মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন আহমদ এর নাম। দীর্ঘ ৩ মাস দিনকে রাত করে সিলেট জেলার প্রতিটি গ্রামে অসহায় মানুষের বাড়ি বাড়ি খাদ্য সামগ্রী নিয়ে ঘুরে বেড়িয়েছেন তিনি। শুধু অসহায় মানুষের ঘরে ঘরে ছুটে বেড়াননি, তিনি তাঁর পুলিশ বাহিনী নিয়ে এ মহামারী করোনা মোকাবেলায় প্রাণপণ চেষ্টা করেছেন যার ফলে আজ সিলেট জেলায় একশত এর উপরে পুলিশ বাহিনীর সদস্য করোনায় আক্রান্ত। করোনায় আক্রান্ত এই দেশপ্রেমিক পুলিশ সদস্যদের আশু রোগমুক্তি কামনা করছি। তারই সাথে পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন এর পরবর্তী কর্মজীবন আরও অধিক আলোকিত হোক মানুষের কল্যাণে সে প্রত্যাশা আমাদের সকলের।






Related News

Comments are Closed