Main Menu

ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা সদস্যের বিরুদ্ধে গ্রামবাসীর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ তাহার লামুয়া গ্রামের সুফিয়া বেগম। রাজনগর উপজেলার ৮ নং মনসুর নগর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বার। তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি ও মিথ্যাচারের প্রতিকার চেয়ে মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসকের কাছে আবেদন দিয়েছেন তাহার লামুয়া গ্রামের সাধারণ মানুষ। ৪০৩ জন মহিলা-পুরুষ স্বাক্ষরিত আবেদনে মহিলা মেম্বার সুফিয়া বেগমের ব্যাপক দুর্নীতি ও মিথ্যাচারের উল্লেখ করে গ্রামবাসীরা বলেন, অনেকের নাম দেখিয়ে সরকারের দেয়া নাগরিক সুবিধার বয়স্ক ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, বিধবা ভাতা আত্মসাৎ করা তার স্বভাবে পরিণত হয়েছে। তার দুই সন্ত্রাসী ছেলে জাহাঙ্গীর বকস ও আলমগীর বকস এর ভয়ে ভুক্তভোগীরা এতদিন মুখ খোলেনি। গ্রামের নিরীহ লোকজনের সাথে ঝগড়া-ফ্যাসাদ, প্রবাসী ও নিকট প্রতিবেশীদের সাথে সুফিয়া বেগমের সন্ত্রাসী ছেলে দ্বয় হরহামেশাই সন্ত্রাসী কার্যক্রম করে আসছে। উক্ত গ্রামের আমেরিকা প্রবাসী মামুন বকসের পরিবারের সদস্যরা তার এই সন্ত্রাসী ছেলেদের নির্যাতনের শিকার হয়ে রাজনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হাসিমকে টেলিফোনে অবহিতও করেছিলেন। মনসুর নগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও রাজনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মিলন বখতকেও তিনি অবহিত করেছিলেন। মিলন বখত সালিশ মিমাংসার চেষ্টা করেও উল্লেখিত মহিলা মেম্বার ও তার ছেলেদেরকে সন্ত্রাসী কার্যক্রম থেকে নিবৃত্ত করতে পারেননি বরং চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধেও তারা নানা অজুহাতে মিথ্যা অপপ্রচার রটনা করছে, এলাকার দুষ্কৃতিকারীদের সহযোগিতা নিয়ে ষড়যন্ত্রের জাল তৈরির অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এহেন পরিস্থিতিতে গ্রামবাসীর দাবি হলো, জেলা প্রশাসক তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। সুফিয়া বেগমের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ বার বার পাওয়া গেছে।






Related News

Comments are Closed