Main Menu

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সিনেমায় সাবেক দুই মন্ত্রী

ডেইলি বিডি নিউজঃ প্রায় ২৬ বছর আগে একসঙ্গে জুটি বেঁধে নাটকে অভিনয় করলেও সিনেমায় দেখা যায় নি আসাদুজ্জামান নূর ও তারানা হালিমকে।

প্রথমবারের মত সিনেমায় জুটি বাঁধছেন এ দুই মন্ত্রী। সরকারি অনুদানে নির্মিত মুশফিকুর রহমান গুলজারের ‘টুঙ্গিপাড়ার দুঃসাহসী খোকা’ সিনেমায় বঙ্গবন্ধুর বাবা ও মায়ের চরিত্রে অভিনয় করবেন নূর-তারানা।

বিষয়টি নিশ্চিত করে নির্মাতা মুশফিকুর রহমান গুলজার বলেন, প্রথম থেকেই এ দুটি চরিত্রে আমার সেরা পছন্দ প্রিয় এই দুই অভিনয়শিল্পী। তাদের নাম প্রস্তাব করেই সরকারি অনুদানের আবেদন করেছিলাম। আমি তাদের সঙ্গে কথাও বলেছি। তারাও আগ্রহ প্রকাশ করেছেন।

শিগগিরই তাদের সঙ্গে চিত্রনাট্য নিয়ে বসবো। আলাপ চূড়ান্ত করবো। টেলিভিশনের পর্দায় একসময় খুব জনপ্রিয় এবং সফল জুটি ছিলেন আসাদুজ্জামান নূর ও তারানা হালিম। আশা করছি তাদের নিয়ে আমার সিনেমার যাত্রাও সফল হবে।

এ নির্মাতা জানান, সবকিছু ঠিক থাকলে কোরবানি ঈদের পর এ ছবি নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে মাঠে নামবেন তিনি। এর আগে শেষ করবেন চিত্রনাট্য গুছিয়ে আনার কাজ৷ সেইসঙ্গে শিল্পী বাছাইও চূড়ান্ত করে নেবেন।

এই ছবিতে বঙ্গবন্ধু চরিত্রে দেখা যাবে নতুন কোনো মুখ। এখানে নাট্যজন মামুনুর রশীদকে দেখা যাবে গুরুত্বপূর্ণ একটি চরিত্রে। ধারণা করা হচ্ছে তাকে বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক গুরু ও বাংলাদেশের বিখ্যাত রাজনীতিবিদ হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর চরিত্রে দেখা যাবে।

বিটিভিতে ১৯৯৪ সালে প্রচার হয় ‘হিমু’ শিরোনামের নাটক। সেখানে রুপা চরিত্রে অভিনয় করেন তারানা হালিম। তার বিপরীতে হুমায়ুন আহমেদের সৃষ্ট জনপ্রিয় হিমু চরিত্রে অভিনয় করেন আসাদুজ্জামান নূর। সে নাটক দারুণ দর্শকপ্রিয়তা পায়।

বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর নির্মিত হবে টুঙ্গিপাড়ার দুঃসাহসী খোকা’ চলচ্চিত্রটি। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার এ ছবির জন্য চলতি অর্থ বছরে সর্বোচ্চ ৭০ লাখ টাকা অনুদান পাবেন।

উল্লেখ্য, আসাদুজ্জামান নূর হলেন একজন বাংলাদেশী অভিনেতা ও রাজনীতিবিদ। তিনি শেখ হাসিনার তৃতীয় মন্ত্রিসভায় বাংলাদেশের সংস্কৃতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এবং ২০০১ সাল থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

তারানা হালিম একজন বাংলাদেশী টেলিভিশন অভিনেত্রী, নাট্য পরিচালক, লেখক, আইনজীবী এবং সমাজকর্মী। জানুয়ারি ২০১৮ সালে, তিনি তথ্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিযুক্ত হন। জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত মহিলা আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য তারানা, ২০১৩ সালের ২২ জানুয়ারি নির্বাচিত সরকারের সংসদ সদস্য এবং ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। তিনি বর্তমানে দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে আইন উপদেষ্টা হিসেবেও কর্মরত রয়েছেন।






Related News

Comments are Closed