Main Menu

বন্যা !

দুলন আহমেদ :: সারা বাংলাদেশে লক্ষ লক্ষ মানুষ পানি বন্ধি। প্রায় নদীগুলো হেমন্ত মাসে শুকিয়ে যায়, বর্ষা মাসে নদীর নব্যতা পেরে পায়,অনেক নদী আছে তার নব্যতা হারিয়েছে, আমরা শুধু প্রতিবছর বেড়িবাঁধ উচুঁ করি,কিন্তু কিছু কিছু নদী খাল বিল আছে যা আগে অনেক পানি ধারণ ক্ষমতা ছিল,তা এখন আর নেই, কারণ সেই নদী খাল বিল ভরাট হয়ে গেছে।

উদাহরণস্বরূপ,আমাদের কুশিয়ারা নদীর গভীর ছিল প্রায় নব্বই হাত,কিন্তু এখন গভীর হবে ত্রিশ হাত,তাহলে বাদবাকি ষাট হাতে যতটুকু পানি তা কুশিয়ারা নদী ধারন করতে না পারায়,সেই পানি চারিদিক চরিয়ে মানুষের ঘরবাড়িতে উঠে যাচ্ছে,আমরা দেখেছি পাঁচ ছয় বছর আগে আমাদের রানীগঞ্জ বাজারে কুশিয়ারা নদীর পানি প্রবেশ করে নাই,কিন্তু এখন প্রতিবছর রানীগঞ্জ বাজারে নদীর পানি প্রবেশ করতেছে,বেড়িবাঁধের বাহিরে যারা বাড়ি ঘর তৈরি করেছেন তাদের বাড়ি ঘরে কুশিয়ারা নদীর পাড় ডুবে প্রতিবছর পানি ঢুকতেছে ,তারা সব সময় বন্যায় প্লাবিত হচ্ছেন,আমার ক্ষুদ্র জ্ঞান থেকে সরকারের কাছে একটাই দাবি জানাই যদি নদী এবং খাল বিল খনন প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়, তাহলে মনে হয় প্রতিবছর বন্যার কবল থেকে আমরা বেঁচে যাবো।






Related News

Comments are Closed