Main Menu

সিসিক উন্নয়নের যাতাকলে পিষ্ট নগরবাসী : প্রাণ গেছে ৩ জনের

নিজস্ব প্রতিবেক :: সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক) অপরিকল্পিত উন্নয়ন ও উন্নয়ন কাজে অনিয়মের যাতাকলে পিষ্ঠ হয়ৈ চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে নগরবাসী ও সাধারন জনগনকে। কোটি কোটি টাকার ভূমি,মার্কেট,অফিস-প্রতিষ্ঠান,উপাসনালয় বিসর্জন দিয়েও কোন উপকার ভোগ করতে পারছেন না তারা। উপকার হচ্ছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান,প্রকৌশলী, অবৈধ ষ্টান্ড ব্যবসায়ী,চাঁদাবাজ,হকার পরিচালক,নামধারী সাংবাদিক ও পুলিশের। প্রশস্থ রাস্তা,ক্লীন ফুটপাত পেয়ে ষ্ট্যান্ড ও হকার ব্যবসা দ্বিগুন ও তিনগুন সম্প্রসারন করেছে তারা। চাঁদাবাজি ও বখরাবাজি বৃদ্ধি পেয়েছে অনেক গুন।

উন্নয়ন কাজে অনিয়ম-দুর্নীতি ও নিম্নমানের কাজ করে অধিক লাভবান হচ্ছেন ঠিকাদার,কন্ট্রাক্টর,প্রকৌশলী ও কথিত সাংবাদিকরা। ভাগ পাচ্ছেন বিভিন্ন মহলের কর্তাব্যক্তি ও দলীয় চাঁদাবাজরা। নগরবাসী থেকে যাচ্ছেন যেই সেই। এতো উন্নয়ন ও এতো বিসর্জন দিয়েও রাস্তা ও ফুটপাত দিয়ে স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারছেন না তারা। খোদ সিসিক ও নগর ভবনের সামনের অবস্থা করুণ। বিকেলে ও সন্ধ্যারাতে শতশত গাড়ি ও ফোরস্টোকের ভিড়ে পায়ে হেটে চলার উপায় নেই। এই অবস্থা পূরো নগরের। হকার ও ষ্ট্যান্ডবাজদের কারণে নাভিশ্বাস নগরবাসীর। পাশাপাশি দিনভর ফেরীওয়ালাদের হাকডাকে বাসাবাড়িতে নিরিবিলি থাকতে পারছেন না নগরবাসী,এমনকি রোগীরাও।

এমনকি অপরিকল্পিত এতো উন্নয়নের যাতাকলে পড়ে কোথাও কোথাও আহত নিহত হতে হচ্ছেন নগরবাসীকে। এই উন্নয়নের জোয়ারে ভেসে গত কয়েক বছরে সিলেট নগরে প্রাণ হারিয়েছেন ৩ জন। গত ৭ ডিসেম্বর নির্মানাধীন ড্রেনের শিকবিদ্ধ হয়ে প্রাণ হারালেন সিলেটের প্রথিতযশা কবি সাহিত্যিক ও শিক্ষক নেতা আব্দুল বাছিত মুহাম্মদ। যদিও এ ঘটনার দায়ে সিটি কর্তৃপক্ষ অব্যাহতি দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট ৫ জনকে।

এর আগে ২০০৫ সালে তৎকালীন নগর উন্নয়ন কমিটির প্রধান ছিলেন কাউন্সিলর ও বর্তমান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। সে সময় নগরীর সুরমা মাকেটে সিটির নির্মিয়মান স্থাপনা ভেঙ্গে পড়ে এক পথচারীর মৃত্যু ঘটে। একই সালে সিসিক কর্তৃক নির্মানকালে টিএনটি অফিসের দেয়াল ধ্বসে চাপা পড়ে এক নির্মান শ্রমিকের মৃত্যু ঘটে। তার বাড়ি সুনামগঞ্জে। সিটি কর্পোরেশনের নির্মানাধীন একটি কালভার্ট ধ্বসে ক’দিন আগে নগরের চৌকিদেখী এলাকায় আহত হন এক সংবাদ কর্মী। ক’বছর পৃর্বে নগর উন্নয়নের গর্তে পড়ে গুরুতর আহত হন দৈনিক বাংলা’র সিলেট প্রতিনিধি সাংবাদিক মুজাহিদ শরীফ। তিনি বর্তমানে যুক্ত রাষ্ট্রের নিউইয়র্কে রয়েছেন। প্রতিটি ঘটনা ও দুর্ঘটনায় প্রাণ ও রক্ত দিতে হচ্ছে নগরবাসী ও জনসাধারনকে। আর ক্ষতিপূরণ গুনতে হয়েছে সিসিক কর্তৃপক্ষকে।






Related News

Comments are Closed