Main Menu

বছরের শুরুতে শীতার্ত মানুষের পাশে দাড়াল সিলেটের অগ্রদূত ছাত্র পরিষদ

ডেইলি বিডি নিউজঃ থার্টি ফাস্ট নাইটের মধ্যরাতে বছরের শুরুতে সিলেটের কীনব্রীজ, কদমতলী ,বাস স্ট্যান্ড,চাদনীঘাট ও রেলওয়ে স্টেশন সহ নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে পথশিশু,গরীব,অসহায় ও ছিন্নমূল শীতার্ত মানুষের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ করল ঐতিহ্যবাহী ও অরাজনৈতিক ছাত্র সংগঠন অগ্রদূত ছাত্র পরিষদ,সিলেট।

হিম হিম ঠাণ্ডা আর কুয়াশায় নাকাল জনজীবন। শীতের এই তীব্রতা বেশি কাবু করে নিম্ন আয়ের মানুষকে। শীতার্ত অসহায় ও দু:স্থ মানুষের উষ্ণতা দিতে সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে পাশে দাঁড়ালেন যুক্তরাজ্য প্রবাসী বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যাক্তিত্ব ও অগ্রদূত ছাত্র পরিষদের উপদেষ্টা দিলওয়ার হুসেন ও আব্দুল মুনিম জাহেদি ক্যারল।তাদের অর্থায়নে ও অগ্রদূত ছাত্র পরিষদ,সিলেট-এর ব্যবস্থাপনার বৃহস্পতি বার দিবাগত রাতে (০১ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১২.১০ ঘটিকা থেকে রাত ১ ঘটিকা পর্যন্ত) ছিন্নমূল মানুষের মাঝে শীত নিবারণ কম্বল বিতরণ করা হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি ও সিনিয়র সাংবাদিক গোলজার আহমদ হেলাল,অগ্রদূত ছাত্র পরিষদ,সিলেট-এর সভাপতি কাবিল আহমদ ইমন,সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবুল কালাম আজাদ,সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রব জাহিদ,অফিস সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম,সহ-অফিস সম্পাদক হামিদুর রহমান,সহ-অর্থ সম্পাদক নাহিদ আহমদ,প্রচার সম্পাদক মোহাম্মদ রেদওয়ান হোসেন,শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল ওয়াহিদ,সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম,সহ-ক্রীড়া সম্পাদক সাব্বির আহমদ,তানভির আহমদ তানিম,আব্দুল্লাহ আল মামুন,মুজাহিদ আহমদ,খোকন আহমদ প্রমুখ।

শীতবস্ত্র বিতরণকালে একজন উপকারভোগী অভিব্যক্তি প্রকাশ করে বলেন বাবা,খুব বেশি ঠান্ডা লাগে এই ঠান্ডায় মনে হয় বাঁচবোনা,যাওয়ার আগে শীত নিবারণ যেন করতে পারি। সন্তান থেকেও নেই, পথেই ঠেলে দিছে এই বয়সে,মানুষ দয়া না করলে এই ঠান্ডায় বাঁচবো কিভাবে?

আজ তাদের মুখের হাসি দেখে অনেক ভালো লাগলো।বৃদ্ধা দাদীর সে ইচ্ছা পূরণ হয়েছে,পরম যত্নে শরীরে কম্বল দিচ্ছেন। এরকম ই মনে করেন তরুণ সমাজকর্মীরা।

এভাবে অনেক পথ শিশু,বৃদ্ধ শীতের জন্য শহরের রাস্থায় দিন-রাত বলের মতো শুয়ে থাকে।

অনেক সামাজিক সংগঠন দেশের ও প্রবাসের ভাইদের সাহায্য সহযোগীতায় এই কাজ করে যাচ্ছেন।






Related News

Comments are Closed