Main Menu

দলীয় প্রার্থীর বিরোধিতা করায় আওয়ামী লীগের ১৮ নেতাকে শোকজ

ডেইলি বিডি নিউজঃ পাবনা জেলা ও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ১৮ শীর্ষ নেতাকে শোকজ করেছে জেলা আওয়ামী লীগ। গতকাল বৃহস্পতিবার (২৮ জানুয়ারি) পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্সের সাক্ষর করা এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

পাবনা পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আলী মর্তুজা বিশ্বাস সনিকে বাদ দিয়ে দলীয় বিদ্রোহী প্রার্থী নাগরিক মঞ্চের (স্বতন্ত্র) প্রার্থী শরীফ উদ্দিন প্রধানের পক্ষ নেয়ায় তাদের শোকজ করা হয়েছে। একই অভিযোগে পাবনা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ ও পৌর আওয়ামী লীগের কমিটি স্থগিত করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল বৃহস্পতিবার রাতে পাবনা শহরের স্বাধীনতা চত্বরে এক নির্বাচনী পথসভায় এ ঘোষণা দেন।

কারণ দর্শানো নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে, ‘নোটিশপ্রাপ্তরা পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আলী মর্তুজা বিশ্বাস সনির বিরোধিতা করে বিদ্রোহী প্রার্থী (নাগরিক মঞ্চের) জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি শরিফ উদ্দিন প্রধানের পক্ষে প্রত্যক্ষভাবে অংশগ্রহণ করছেন। যা দলের গঠনতন্ত্রের ৪৭ ( ঠ) ধারার পরিপন্থী। এমতাবস্থায় নোটিশপ্রাপ্তদের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না- জানতে চেয়ে তার যৌক্তিক কারণ ব্যাখ্যা করে জবাব দেয়ার নির্দেশ দেয়া হল’।

নোটিশ প্রাপ্তরা হলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আজাদ বাবু, সহ-সভাপতি আব্দুল হামিদ মাস্টার, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক আবু ইসাহাক শামীম, অ্যাডভোকেট বেলায়েত আলী বিল্লু, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল বারী বাকী, দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুল আহাদ বাবু, প্রচার সম্পাদক কামিল হোসেন, ধর্ম সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, কোষাধ্যক্ষ আব্দুল হান্নান, শ্রম সম্পাদক সরদার মিঠু আহমেদ, কার্যকরী সদস্য ইমদাদ আলী বিশ্বাস, উপদেষ্টা ইদ্রিস আলী বিশ্বাস, আ স ম আব্দুর রহিম পাকন, লিয়াকত আলী, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হাসান শাহীন, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি তসলিম হাসান সুমন, সাধারণ সম্পাদক শাজাহান মামুন।

এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক গোলাম ফারুক প্রিন্স বলেন, দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের নির্দেশে তাদের শোকজ নোটিশ দেয়া হয়েছে। জবাব পেলে দলের হাইকমান্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নোটিশ প্রাপ্তির কথা স্বীকার করে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগের দফতর সম্পাদক আব্দুল আহাদ বাবু গণমাধ্যমকর্মীদের কাছে বলেন, তারা নৌকা প্রতীকের বিরোধী নয়। দলের তৃণমূল রক্ষার তাগিদেই এমন সিদ্ধান্ত নিতে তারা বাধ্য হয়েছেন। নোটিশের জবাবে তারা দলের হাইকমান্ডকে প্রমাণসহ এসব বিষয় জানাবেন।

এদিকে একই কারণে পাবনা সদর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আরমান হোসেনকে বহিষ্কার ও কমিটি বিলুপ্ত করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম কামাল বৃহস্পতিবার রাতে পাবনা শহরের স্বাধীনতা চত্বরে এক নির্বাচনী পথসভায় বলেন, দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ না করে বিদোহী প্রার্থীর পক্ষে কাজ করায় সদর উপজেলা এবং পাবনা পৌর আওয়ামী লীগের কমিটি স্থগিত ঘোষণা করেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান হাবিব।

উল্লেখ্য, পাবনা পৌরসভায় ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আলী মর্তুজা বিশ্বাস সনি, নাগরিক মঞ্চের (স্বতন্ত্র) প্রার্থী জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি শরিফ উদ্দিন প্রধান, বিএনপি প্রার্থী জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক নুর মোহাম্মদ মাসুম বগা, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের আবু বকর সিদ্দিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।






Related News

Comments are Closed