Main Menu

ক্রিকেট উচ্ছ্বাসে মেতেছে সবাই

ডেইলি বিডি নিউজঃ অগ্নিঝরা মার্চে আবারও জাগলো বাঙ্গালী। বিস্ফোরণ আর দ্রোহের মার্চে সোনার ছেলেরা দেশবাসিকে আনন্দস্রোতে ভাসালো। বাংলার বাঘদের অনন্য অসাধারণ নৈপুণ্যে ক্রিকেটের অন্যতম পরাশক্তি পাকিস্তানের বোলিং, ব্যাটিং তাসের ঘরের ন্যায় বিপর্যস্থ হল। তামিম, সৌম্য, মাশরাফি, আল-আমিন, সাকিব, মুসফিকদের দুরন্ত, দুর্দান্ত দৃঢ়তায় পরাস্থ হল পাকিস্তান।

বুধবার রাজধানীর মিরপুরে আলো-আধারি মাঠে কোটি কোটি বাংলাদেশির চোখ ছিল নিবদ্ধ। মাঠে উপস্থিত হাজার হাজার ক্রিকেটপ্রেমীদের উল্লাস, উচ্ছ্বাস, উৎসব আবার কখনো পিনপতন নিরবতা। সব মিলে মিরপুরের স্টেডিয়াম হয়ে উঠেছিল বাংলাদেশের আশা প্রত্যাশার প্রতিবিম্ব।

আজ সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বাংলাদেশের টাইগাররা মুখোমুখি হবে সাবেক বিশ্ব চ্যাম্পিয়ান ভারতের। কিন্তু ভারতের সঙ্গে মুখোমুখি হওয়াকে স্বাভাবিকভাবে না দেখলেও বাংলাদেশের ক্রিকেট ভক্তদের হৃদয়ে রয়েছে বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ্বাস। সবার প্রত্যাশা আজ জিতবে টাইগাররা। হাঁসি ফোটাবে ষোলকোটি মানুষের হৃদয়ে।

আজকের ফাইনাল ম্যাচ নিয়ে নানা উত্তেজনা, কৌতুহলের শেষ নেই পুরো দেশবাসীরা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা নানা প্লে-কার্ড মাথায় বেঁধে, লাল সবুজের পতাকা সংবলিতি টি-শার্ট পড়ে সারাদিন ঘুরে বেড়িয়েছে। মল চত্বর গিয়ে দেখা যায় বিশাল ভিড়। ক্রিকেট ভক্তরা বিকেল থেকেই মাঠ দখল নিয়ে ব্যস্ত। শুরুর দিকে মল চত্বরে বড় পর্দায় খেলা দেখার জন্য অপেক্ষা করছেন জাহিদুল ইসলাম, কামাল, রুবিনা, ও মুন্নি।

কথা হলো রুবিনার সঙ্গে।তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে এখন পরিবর্তন এসেছে। আশা করি আমরা আজকে ভারতে হারাতে পারবো। দেশের প্রতি সবার যে কি ভালবাসা এখানে না আসলে বুঝতাম না।’

কামাল জানান, ‘ক্রিকেটের অনেক উন্নয়ন হয়েছে। আমরা এখন যে কাউকে হারাতে পারি। আমারদের সে খেলোয়াড় আছে। আজকেও ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে পারলে আমরা জিতবো ইনশাআল্লাহ।’

শাহবাগ গিয়ে দেখা যায়, রিক্সাচালক মুজাহিদ ও করিম কথা বলছেন ক্রিকেট নিয়ে। কথা হয় তাদের সঙ্গে। মুজাহিদ বলেন, ‘এর আগে বাংলাদেশ পাকিস্তানকে হারিয়েছে। আজকে ভারতকে হারাবে।সন্ধ্যার পর থেকে আর ভাড়া নেবো না। খেলা দেখতে হবে।’

করিম জানান, ‘জানি না কে জিতবে। তবে মনে হচ্ছে বাংলাদেশ জিতে যেতে পারে। তামিক ইকবাল ভাল খেললে কিছু হবে বলে আশা তার।

 






Related News

Comments are Closed