Main Menu

সিলেট সিটি করপোরেশনে বিলীন হচ্ছে কুচাই ইউনিয়ন

ফারহানা বেগম হেনাঃ মাত্র ২৬ দশমিক ৫০ বর্গকিলোমিটার নিয়ে ২০০২ সালে দেশের সবচেয়ে ছোট সিটি করপোরেশন হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয় সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)। প্রতিষ্ঠার একযুগ পর ২০১৪ সালে মহানগরীর সীমানা পরিবর্ধনের উদ্যোগ নেওয়ার আরও সাত বছর পর অবশেষে বাড়ছে এ নগরীর পরিসীমা।

সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা যায়, ১৮৭৮ সালে পৌনে দুই বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ে গঠিত হয়েছিল সিলেট পৌরসভা। ২০০২ সালে সিলেট সিটি করপোরেশনে উন্নীত হলে পরিধি বাড়ে। তখন ২৬ দশমিক ৫০ বর্গকিলোমিটার করা হয় সিটি করপোরেশনের আয়তন। সিটি করপোরেশন গঠনের প্রায় এক যুগ পর ১৬০ দশমিক ৬২ বর্গকিলোমিটার আয়তনে মহানগর করার প্রস্তাব দেওয়া হয়। ওই প্রস্তাব বাস্তবায়িত হলে সিসিকের ২৭টি ওয়ার্ডের সংখ্যা বেড়ে অর্ধশতাধিক হবে।

সিলেট সিটি করপোরেশনের সীমানা সম্প্রসারণে গত বছর বিগত বছরের ৯ আগস্ট গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছিলো সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার শাখা। জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম সাক্ষরিত এ বিজ্ঞপ্তিতে সিলেট সদর উপজেলার টুকেরবাজার, খাদিমনগর, খাদিমপাড়া এবং টুলটিকর ইউনিয়নের কিছু অংশ এবং দক্ষিণ সুরমা উপজেলার কুচাই, বরইকান্দি ও তেতলী ইউনিয়নের কিছু অংশকে অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত প্রকাশ করা হয়েছিলো। সিলেট সিটি করপোরেশনকে প্রায় ৫৭ বর্গকিলোমিটারে উন্নীতের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম স্বাক্ষরিত ওই গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়। বর্তমানে সিসিকের আয়তন রয়েছে ২৬ বর্গকিলোমিটার।

তবে গত বছরের  ১৯ আগস্ট সিলেট সিটি করপোরেশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও সিলেট-১ আসনের সংসদ সদস্য ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, সিলেট নগরের আয়তন আট গুণ বাড়ানো উচিত। বর্তমান গণবিজ্ঞপ্তিকে বিপর্যয়কর বলে মন্তব্য করেন তিনি।

প্রকাশিত গণবিজ্ঞপ্তিতে সিটি করপোরেশনের আয়তন মহাপরিকল্পনা অনুযায়ী বর্ধিত না হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীও। গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশের পর তাত্ক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি জানিয়েছিলেন, গেজেটেড মাস্টারপ্ল্যানে সিসিককে সম্প্রসারণ করে ৮৫ দশমিক ১৫ বর্গকিলোমিটারে উন্নীত করার নির্দেশনা রয়েছে।

বিগত বছরের ৩ সেপ্টেম্বর সিলেট দক্ষিণ সুরমা উপজেলার কুচাই ইউনিয়নের ছয়টি মৌজা সিলেট সিটি করপোরেশনে অন্তর্ভুক্তির দাবিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী, সিলেট সিটি মেয়র ও সিলেটের জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছিলেন এলাকাবাসী। স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, কুচাই ইউনিয়নের পালপুর, কুচাই, পশ্চিমভাগ, শ্রীরামপুর, সুলতানপুর ও তৈয়বসুলতান মৌজাকে বাদ দিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের সীমানা বৃদ্ধির খসড়া গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে। আমরা চাই পালপুর, কুচাই, পশ্চিমভাগ, শ্রীরামপুর, সুলতানপুর ও তৈয়বসুলতান মৌজাকেও সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করা হোক।

এসব এলাকার বেশ কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, গণবিজ্ঞপ্তিতে ইউনিয়ন বিভক্ত করা হয়েছে। তাদের মতে, একটি ইউনিয়নের অর্ধেক বা কিছু অংশ সিটিতে অন্তর্ভুক্ত করলে স্থানীয়দের মধ্যে বিশৃঙ্খলা দেখা দেবে। পাশাপাশি সিটি ও ইউনিয়নের সেবা আলাদা হওয়ায় অনেকেই বৈষম্যের শিকার হবেন। তাই কোনো ইউনিয়নকে আংশিকভাবে সিটিতে অন্তর্ভুক্ত না করে পুরো ইউনিয়নকে সিটিতে অন্তর্ভুক্ত করার দাবি জানান তারা।

এদিকে সম্প্রতি সিটি করপোরেশন সূত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সীমানা বর্ধিতকরণ বিল ‘নিকারে’ অনুমোদিত হয়েছে যাতে কুচাই ইউনিয়নের পালপুর, কুচাই, পশ্চিমভাগ, শ্রীরামপুর, সুলতানপুর ও তৈয়বসুলতান মৌজাও সিটি করপোরেশনের অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে। কুচাই ইউনিয়নটি সিলেট শহরের প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজার অর্থাৎ শূণ্য কিলোমিটার হতে মাত্র ৩/৪ কিলোমিটার দূরত্বে অবস্থিত। এছাড়া শূণ্য কিলোমিটার হতে কুচাই ইউনিয়নের সীমানা মাত্র ৮কিলোমিটার।

কুচাই ইউনিয়নের মধ্যে বিভাগীয় কমিশনারের এর কার্যালয়, ডিআইজি কার্যালয়, সিলেট, সিলেট পল­ী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর সদর দপ্তর, বিসিকশিল্পনগরী, ফায়ার সার্ভিস স্টেশন, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড, শেখ হাসিনা শিশুপার্ক, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এর আঞ্চলিক কার্যালয়, বিভাগীয় পর্যায়ে প্রধানদের অফিস (যেমন- আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়, পরিবেশ অধিদপ্তর, জোনাল সেটেলেমন্ট অফিস ইত্যাদি), আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, বিআরটিএর ডিপো, সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, উপ-পুলিশ কমিশনারের কার্যালয় (প্রটোকল), আলমপুর পুলিশ ফাঁড়ি, বিটিসিএল এর কার্যালয় রয়েছে। উল্লে­খিত কার্যালয়গুলোতে সকল মৌজায় অবস্থিত সে সকল মৌজা ইতোপূর্বে ৪নং কুচাই ইউনিয়নভুক্ত ছিল। গুরত্বপূর্ণ যোগাযোগ অবকাঠামো বিদ্যমান থাকায় যা পরবর্তীতে সিলেটসিটি কর্পোরেশনভুক্ত করা হয়।

এছাড়া কুচাই ইউনিয়নে ইছরাব আলী স্কুল ও কলেজ (মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা কেন্দ্র), সিরাজউদ্দীন আহমদ একাডেমী (মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা কেন্দ্র), শেখ রাসেল টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, সিলেট টেক্সটাইল ইনস্টিটিউট, কিন্ডার গার্টেনসহ আরো অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

উল্লেখ্য যে, বর্তমান কুচাই ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়টিও সিটি কর্পোরেশন এলাকার অভ্যন্তের অবস্থিত।

২০০২ সালে সিলেট সিটি কর্পোরেশন প্রতিষ্ঠার পর থেকে এর আয়তন বর্ধিত করার দাবি করছেন স্থানীয়রা। পরবর্তীতে সিলেটের বর্ধিত মহানগরীর উন্নয়নের জন্য ২০১০ সালে একটি মহাপরিকল্পনা প্রস্তুত ও গেজেট করা হয়।

প্রস্তাবনার ৬ বছর পর মহানগরী সম্প্রসারণে পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জানিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘মহানগরীর সম্প্রসারণ বারবার সম্ভব হয় না। তাই প্রথমবারেই মহাপরিকল্পনা ও প্রস্তাবনা অনুযায়ী সম্প্রসারণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করা উচিত।’

তিনি আরো জানান, ‘সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ মহানগরীর সম্প্রসারণ বিবেচনা করে তার সীমানা ব্যাপকভাবে বর্ধিত করেছে, সেখানে সিটি করপোরেশন অন্তত ততটুকুই বর্ধিত হওয়া উচিত। মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী সিটি করপোরেশনের আয়তন আরও বাড়ানো প্রয়োজন। সিটি করপোরেশনের আয়তন যত বাড়বে, সেবার পরিধিও তত বাড়বে। এতে অধিকসংখ্যক মানুষও সেবার আওতায় আসবে।






Related News

Comments are Closed