Main Menu

বিশ্বনাথে সড়ক নয় যেন মরন ফাঁদ, জনদূর্ভোগ চরমে

মো. আবুল কাশেম, বিশ্বনাথ থেকে :: সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার জনগুরুত্বপূর্ণ বিশ্বনাথ জিসি-খাজাঞ্চী-কামালবাজার আর.এইচ.ডি সড়ক এখন বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। দেখেও না দেখার ভান করছেন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। সড়কের বিভিন্ন স্থানে যথাসময়ে সংস্কার কাজ না করায় কার্পেটিং উঠে গিয়ে সড়কে সৃষ্টি হয়েছে বড় বড় গর্ত। এ সড়কে প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোট-বড় দূর্ঘটনা। জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যানবাহনে চলাচল করছেন যাত্রীরা। ফলে মারাত্মক দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রী সাধারণকে।

বিগত ৪ দলীয় জোট সরকারের আমলে সড়কের পুর্নাঙ্গ নির্মাণ কাজ করা হয়। সর্বশেষ মহাজোট সড়কারের আমলে ১০১৫ সালে সড়কের সংস্কার কাজ করা হয়। বছর ঘুরতে না ঘুরতেই সড়কে কার্পেটিং উঠে সৃষ্টি হতে থাকে খানাখন্দ। জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়ক বর্তমানে চলাচলের জন্য অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন বিশ্বনাথ উপজেলার খাজাঞ্চী, অলংকারী, রামপাশা ইউনিয়ন এবং সিলেট সদর উপজেলার কান্দিগাঁও ইউনিয়নের মানুষ বিশ্বনাথ উপজেলা সদর ও জেলা সদরে যায়াত করেন। সড়ক দিয়ে প্রতিদিন চলাচল করছে শত শত যানবাহন। বর্তমানে সড়কের বেহাল অবস্থা থাকায় চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছেন এসব এলাকার মানুষ।

সড়কের এমন নাজুক অবস্থার কারণে অনেক চাকুরিজীবীরা সময়মত তাদের গন্তব্যে পৌছাতে পারছেন না। বিশেষ করে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথে গর্ভবতী রুগী নিয়ে বিপাকে পড়তে হচ্ছে অভিভাবকদের। ২০২০ সালের ১৩ অক্টোবর সড়কের বেহলা অবস্থা দেখতে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে সরেজমিন সড়কটি পরিদর্শন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য মোকাব্বির খান। কিন্ত সড়ক সংস্কারে সরকারের পক্ষ হতে এখনও কোন প্রদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি। এতে হতাশ এলাকাবাসী। তাই দ্রুত গুরুত্বপূর্ণ বিশ্বনাথ জিসি-খাজাঞ্চী-কামালবাজার আর.এইচ.ডি সড়কে সংস্কার কাজ করে জনদূর্ভোগ লাগব করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেছেন এলাকাবাসী।

এব্যাপারে অটোরিক্সা চালক লিলু মিয়া বলেন, জীবিকার তাগিদে প্রতিদিন এ সড়কে ঝুঁকি নিয়ে বাধ্য হয়ে আমাদের গাড়ী চালাতে হচ্ছে। প্রায়ই নষ্ট হচ্ছে গাড়ীর যন্ত্রাংশ।

ইউপি সদস্য গৌছ আহমদ বলেন, যথা সময়ে সড়কে সংস্কার কাজ না হওয়ায় এই করুণ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। ফলে দূভোর্গ পোহাতে হচ্ছে জনসাধারণকে। জরুরী ভিত্তিতে জনগুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটি সংস্কারের জন্য তিনি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সু-দৃষ্টি কামনা করেন।






Related News

Comments are Closed