Main Menu

শান্তিগঞ্জ উপজেলা স্বীকৃতি পাওয়ায় আনন্দের বন্যা, পরিকল্পনামন্ত্রীকে অভিনন্দন

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। হাওরাঞ্চলের মানুষ যাকে হাওর রত্ন বা উন্নয়নের মহারথী উপাধী দিয়েছে। এই দেয়াতে আশ্চর্য্য হওয়ার কিছু নেই। কারন তিনি তার কাজের মাধ্যমে হাওরপাড়ের মানুষের ভালোবাসায় শিক্ত হয়ে এই উপাধী অর্জন করে নিয়েছেন।

হাওরবেষ্টিত জেলা সুনামগঞ্জে যখন কোনো কিছুই ছিলো না তখন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এনে দিয়েছেন বিশেষ বিশেষ উপহার। তার মধ্যে উল্লেখ যোগ্য উপহার হলো সুনামগঞ্জবাসীর বহুল প্রত্যাশিত সুনামগঞ্জ টেক্সটাইল, সুনামগঞ্জ বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ, রানীগঞ্জ সেতুসহ আরও বড়বড় স্থাপনা। ইতিমধ্যেই সুনামগঞ্জবাসীর বহুদিনের স্বপ্ন সুনামগঞ্জ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থাপনের কাজ প্রক্রিয়াধীন। আর এসব কিছু তার হাতধরেই বাস্তবায়িত হচ্ছে। ক্লীন ইমেজের এই মানুষটি এজন্য এই অঞ্চলে সজ্জন রাজনীতিবিদ হিসেবে বেশ পরিচিতি লাভ করেছেন।

বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের দূত হিসাবে হাওরপাড়ের মানুষকে দিয়ে যাচ্ছেন সরকারের উন্নয়নের বার্তা। তিনি জনগনের ভোটের মূল্য দিতে কোনো ভুল করেন নি। তাই তো হাওর পাড়ের এ সন্তান কিছুদিন আগে সুনামগঞ্জের হাওরাঞ্চলের অসহায়, দুস্থ, বিধবা ও দরিদ্র নারীদের কল্যাণে নিজের পৈতৃক ভিটার ৪১ শতক জমি সরকারের নামে দান করে দিয়েছেন। তার দান করা জমিতে মন্ত্রীর মায়ের নামে ‘আজিজুননেসা টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট’ তৈরি হবে। সেখান থেকে হাওরাঞ্চলের নারীরা বিভিন্ন প্রশিক্ষণ নিয়ে নিজেরা স্বাবলম্বী হতে পারবেন।

হাওরবাসী যেন উন্নয়নের সুরঙ্গপথ খুঁজে পেয়েছে এম এ মান্নানের মাধ্যমে! যার খনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেই ধারাবাহিকতায় আবারো আলোর বার্তা নিয়ে এসেছেন তিনি মন্ত্রীর নির্বাচনী আসনের মানুষের বহুল প্রত্যাশিত স্বপ্ন আর দাবী দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা কে শান্তিগঞ্জ উপজেলা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে সরকার।

আজ সোমবার (২৬ জুলাই) নিকারের সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়। পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এর নির্বাচনী এলাকা ও নিজ এলাকা শান্তি গঞ্জ কে উপজেলা হিসেবে নামকরণ করতে এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসছিলেন। যার প্রেক্ষিতে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এর প্রচেষ্টায় শান্তিগঞ্জ উপজেলা স্বীকৃতি মিলল।

দীর্ঘদিন ধরে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা নিয়ে নানা প্রতিবন্ধকতা দেখা দিয়েছিল। শান্তিগঞ্জে উপজেলা প্রশাসনের সকল দাপ্তরিক অফিস রয়েছে। এদিকে শান্তিগঞ্জ উপজেলা হিসেবে স্বীকৃতি মিলায় শান্তিগঞ্জে আনন্দের বন্যা বইছে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান কে অভিনন্দন জানিয়ে এলাকাবাসী আনন্দ প্রকাশ করছেন বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এর একান্ত রাজনৈতিক সচিব হাসনাত হোসেন।

হাসনাত হোসেন বলেন, দীর্ঘদিনের দাবী পূরণ হওয়ায় শান্তিগঞ্জে আনন্দের বন্যা বইছে। তারা আমাদের হাওররত্ন পরিকল্পনামন্ত্রী আলহাজ্ব এম এ মান্নান মহোদয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন৷






Related News

Comments are Closed