Main Menu

ফেঞ্চুগঞ্জে অরক্ষিত রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনার শষ্কা

রুমেল আহসান:: ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাঁও রেলস্টেশনের অধীন ছয়টি রেলক্রসিংয়ের মধ্যে দুটো অনুমোদন প্রক্রিয়ার মধ্যে রয়েছে। রেলপথের উপর দিয়ে গেছে গ্রাম্য ও বাজারের রাস্তা। রাস্তা দিয়ে চলাচল মানুষ। নিয়মিত যাওয়া আসা করছে যানবাহন। কিন্তু নেই কোনো গেটম্যান। ফেঞ্চুগঞ্জ রেল স্টেশন সংলগ্ন হযরত শাহ্ মালুম মাজার (র:) সড়ক ও কটালপুর এলাকার উস্তারের সড়কের এলাকায় গিয়ে দেখা যায় এ দৃশ্য।

সরজমিন এমন কয়েকটি রেলক্রসিং ঘুরে দেখা যায়, অনুমোদনবিহীন এসব রেলক্রসিং দিয়ে ঝুঁকি নিয়ে পারপার হচ্ছে মানুষ ও যানবাহন। এতে বাড়ছে রেল দুর্ঘটনার ঝুঁকি।

সিলেট-কুলাউড়ার ভাটেরা পর্যন্ত সিলেট জেলার অংশের রেলপথে অন্তত শতাধিক রেলক্রসিং রয়েছে,যার কোনো অনুমোদনই নেই। এভাবে রেলক্রসিং করা অবৈধ। কোনো অনুমতি নেই,যা রেল আইন অনুযায়ী বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য।

রেলওয়ে আইন অনুযায়ী,রেলপথে ক্রসিং তৈরি করতে হলে সংশ্লিষ্ট এলাকার ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে পূর্বানুমতি নিতে হয়। ক্রসিংয়ের স্থানে রেলপথের দুই পাশে ওই ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে ফটক নির্মাণ করতে হবে। এরপর কমপক্ষে তিনজন প্রহরীর মজুরি,সিগন্যাল ব্যবস্থাপনার খরচও বহন করতে হবে সংশ্লিষ্টদের। এরপর সরেজমিন পরিদর্শন করে রেলওয়ে প্রকৌশল বিভাগের চূড়ান্ত পর্যবেক্ষণের পর রেলস্টেশন থেকে ওই ক্রসিংয়ের অনুমোদন দেওয়া হয়।

কুলাউড়ার ভাটেরা এলাকার হোসেনপুর পর্যন্ত অনুমোদনহীন ক্রসিং বেশি বলে জানায় ফেঞ্চুগঞ্জের মাইজগাঁও রেলস্টেশন কর্তৃপক্ষ।

স্টেশনমাস্টার মনির হোসেন বলেন,ফেঞ্চুগঞ্জ ও মাইজগাঁওয়ে ছয়টি ক্রসিং রয়েছে। এর মধ্যে দুটো অনুমোদিত। বাকি চারটির কোনো অনুমোদন নেই। এরপর ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে কুলাউড়ার ভাটেরা পর্যন্ত পথে পথে রেলক্রসিং। যেখানে গ্রামীণ রাস্তা গিয়ে রেলপথে মিলিত হয়েছে,সেখানেই ক্রসিং হিসেবে ব্যবহৃত হচ্ছে। গত রোববার ভাটেরা এলাকায় যে রেলক্রসিংয়ে দুর্ঘটনা ঘটে, সেটিও অনুমোদনহীন।

সিলেট রেলস্টেশনের ব্যবস্থাপক মো.খলিলুর রহমান বলেন,গত বছরের জানুয়ারি পর্যন্ত রেলওয়ের প্রকৌশল (পথ) বিভাগের এক পর্যবেক্ষণে সিলেট থেকে ভাটেরা পর্যন্ত ৪৮ কিলোমিটার রেলপথে ২৫টি লেভেল ক্রসিং অনুমোদন প্রস্তাবের তালিকায় ছিল। ওই সময় এসব এলাকায় আরও অন্তত অর্ধশতাধিক লেভেল ক্রসিং দেখা গেছে। দেড় বছর পর এ সংখ্যা শতাধিক হবে।

রেলপথের আশপাশে রাস্তা হওয়ায় যত্রতত্রভাবে রেলক্রসিং হচ্ছে জানিয়ে ব্যবস্থাপক আরও বলেন,এভাবে রেলক্রসিং করা অবৈধ। কোনো অনুমতি নেই,যা রেল আইন অনুযায়ী বেআইনি এবং শাস্তিযোগ্য। এ ব্যাপারে রেলওয়ের প্রকৌশল (পথ) বিভাগ পদক্ষেপ নেবে।






Related News

Comments are Closed